Chapai aam Bazar

ল্যাংড়া আম

  • দামঃ ৯৫ টাকা
  • চাপাই আম বাজারের পন্য

আমের রাজা নামে পরিচিত “ল্যাংড়া” আম। ভারতের বেনারসে এই জাতের উদ্ভব হয়েছে। সেখানের এক খোঁড়া বা ল্যাংড়া ফকিরের নামে আমটির নামকরন হয়েছে। সেই খোঁড়া বা ল্যাংড়া ফকিরের আস্তানা থেকে এই জাতটি প্রথম সংগ্রহ করা হয়েছিলো। সেই ল্যাংড়া ফকির যেখানে বাস করতেন তার আশে-পাশে বিজ থেকে উৎপন্ন শত শত আমের গাছ ছিলো। তারই একটি থেকে ল্যাংড়া নামের এই উৎকৃষ্ট জাতটি বেরিয়ে আসে। সেই ফকিরের প্রচেষ্টায় নির্দিষ্ট বা নির্বাচিত গাছটি থেকে কলম চারা আশে-পাশে ছড়িয়ে যায়। কাচা অবস্থায় এই আমটি প্রচন্ড টক হয়। তবে কাচা অবস্থায় যতই টক হোক না কেনো পাকলে কিন্তু অসাধারন মিষ্টি স্বাদযুক্ত হয় এবং সেই সাথে তার রং ও গন্ধ হয় অতুলনীয় যা জিভে পানি আসার জন্য যথেষ্ট। এই আমটি গাছে প্রচুর পরিমান ধরে তবে অকালে ঝরে পড়ার পরিমানটাও নেহাত কম নয়! যখন খুব ছোট ছিলাম প্রতিযোগিতা করে আম কুড়তে পাড়তাম না তখন এই অবহেলায় পড়ে থাকা আমগুলোই আম কুড়ানোর শখ মিটাত। তবে এই আম কুড়িয়ে মার সামনে নিয়ে গিয়ে আদর পাওয়ার ভরসা সব সময় ছিলো না। যদি কোন কারনে বড় ভাই-বোনেরা আম কুড়িয়ে না আনত বা বাসায় টক জাতীয় রান্না করার আয়োজন থাকত তাহলেই কেবল এই কুড়ানো আমগুলো মার কাছে কিছুটা গুরুত্ব পেত তা নাহলে উলটো সময়মত পড়তে না বসার কারনে বকুনি ফ্রি থাকত। তখন মনে মনে ভাবতাম এই আমগুলো যদি একমাস পড় কুড়োতে পারতাম তাহলে মা আমাকে কতই না আদর করত। কারন সেসময় আমগুলো পেকে যেত এবং এতগুলো সুস্বাদু পাকা আম মায়ের কাছে আনলে সাত দিনের জন্য মা নিজেই স্পেশাল ছুটি দিয়ে দিত। কিন্তু আফসোস হত ঐ সময় আম কুড়নোত দূরের কথা গাছের আশে-পাশে আমাদের দেখলেই বড় পোলাপানগুলোর শাষন করার ব্যতিক উঠতো। এতদিন যে গাছের প্রতি তাদের এত অবহেলা ছিলো হঠাৎ নাওয়া-খাওয়া বাদ দিয়ে সেই গাছের তলায় বসে থাকায় যেনো তাদের একমাত্র কাজ হয়ে দাড়াত। যাইহোক ল্যাংড়া আম ওজনে প্রায় ২০০-৭০০ গ্রাম হয়। অগ্রিম প্রজাতির এই আমটি আমের মৌসুমের শুরুতেই পাওয়া যায় । অসাধারণ রং, অতুলনিয় মিষ্টি স্বাদ ও গন্ধ যা অবশ্য পূর্বেই উল্লেখ করেছি । খোসা ও আঁঠি পাতলা এবং আমটি আঁশহীন হয়। গড় মিষ্টতার পরিমান ১৯.৭% এবং খাওয়ার উপযোগী অংশ গড়ে ৭৩.১%। ল্যাংড়া আমটি অনেক জেলায় উৎপাদন হয় তবে চাঁপাই এর ল্যাংড়া গুনে ও মানে অপ্রতিদন্দী। এই আম আমরা সরাসরি নিজেদের বাগান হতে সংগ্রহ করে ১০০% রং,ক্ষতিকর কেমিক্যাল ও ফরমালীন মুক্তভাবে আপনাদের নিকট পৌছার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি ।

আমাদের আমের বৈশিষ্ট্যসমূহঃ-

১। কার্বাইড নাই ।
২। ফরমালিন নাই ।
৩। গ্রথ হরমন নাই ।
৪। কৃত্রিম রং নাই ।

আমাদের ল্যাংড়া আম ক্রয়ের নিয়মাবলীঃ-

১। আমরা আমের অর্ডার ফেসবুক পেজের ইনবক্স, মোবাইল ম্যাসেজ এবং সরাসরি মোবাইল কলের মাধ্যমে গ্রহণ করি।

ফেসবুক পেজ https://facebook.com/chapaiaambazar.org

২। আমরা ঢাকায় হোমডেলিভারী এবং বাকি সারাদেশে কুরিয়ার ডেলিভারী করি। হোমডেলিভারীর প্যাকেজ ১৩ কেজি ও ২০ কেজি এবং কুরিয়ার ডেলিভারীর প্যাকেজ ১৫ কেজি। সব অর্ডার এর গাণিতিক হারে দিতে হবে।

৩। হোমডেলিভারীর ক্ষেত্রে ক্যাশ অন ডেলিভারী কিন্তু কুরিয়ার ডেলিভারীর ক্ষেত্রে অগ্রীম পেমেন্ট নেওয়া হয়। কারণ আম পচনশীল পণ্য হওয়ায় এটা ফেরতযোগ্য নই। কুরিয়ার ডেলিভারীর ক্ষেত্রে বিকাশ ( পার্সোনাল ও এজেন্ট), রকেট ( পার্সোনাল ও এজেন্ট) এবং ডাচ বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে অগ্রীম পেমেন্ট নেওয়া হয়।

৪। হোমডেলিভারীর ক্ষেত্রে আমের সাথে আচার, আমসত্ব এবং আমচুরের অর্ডার গ্রহণ করা হয়। সেক্ষেত্রে এগুলোর জন্য কোন অতিরিক্ত ডেলিভারী চার্য নেওয়া হয়না শুধুমাত্র আমের হোমডেলিভারী চার্য নেওয়া হয়।

৫। কুরিয়ার ডেলিভারীর ক্ষেত্রে আমের সাথে আচার বাদে বাকি দুইটা অর্থাৎ আমসত্ব ও আমচুরের অর্ডার নেওয়া হয়। এক্ষেত্রেও এই দুইটার জন্য অতিরক্ত চার্য নেওয়া হয় না।তেল জাতীয় পণ্য কুরিয়ার পরিবহন না করায় আমরা কুরিয়ার ডেলিভারীতে আচারের অর্ডার নিতে পারি না।

৬। সকল অর্ডার ডেলিভারী ডেটের ৪৮ ঘন্টার মধ্যে পৌছে দেওয়া হয়। তবে প্রাকৃতিক বা অন্য কারণ বশত এক্ষেত্রে সময়ের কম বেশি হতে পারে।

আজকে  ল্যাংড়া  আমের বাজার দরঃ-

প্রতি কেজি ৯৫ টাকা + ৫টাকা হোমডেলীভারি চার্জ/১৩ টাকা কুরিয়ার চার্জ।

(7)

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ